সোমবার, জুন ২৪, ২০২৪
spot_img
Homeমুল পাতাধর্ষণ মামলায় গ্রেপ্তার টিকটকার প্রিন্স মামুন

ধর্ষণ মামলায় গ্রেপ্তার টিকটকার প্রিন্স মামুন

প্রাইম ভিশন ডেস্ক »

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে পরিচিত টিকটকার আব্দুল্লাহ আল মামুন ওরফে প্রিন্স মামুনকে (২৫) গ্রেপ্তার করেছে ঢাকার ক্যান্টনমেন্ট থানা-পুলিশ। তার বান্ধবী হিসেবে পরিচিত এক নারীর করা ধর্ষণ মামলায় মামুনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

সোমবার (১১ জুন) রাতে কুমিল্লার দাউদকান্দি উপজেলার টোলপ্লাজার সামনে থেকে মামুনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন দাউদকান্দি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মোজাম্মেল হক। তিনি ঢাকা ট্রিবিউনকে বলেন, “মামলাটি ঢাকার ক্যান্টনমেন্ট থানায় নথিভুক্ত হওয়ায় সেখানের পুলিশের কাছে মামুনকে হস্তান্তর করা হয়েছে।”

এ বিষয়ে ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) ক্যান্টনমেন্ট জোনের অতিরিক্ত উপ-কমিশনার সাজ্জাদ ইবনে রায়হান বলেন, “ধর্ষণের অভিযোগে মামুনের বিরুদ্ধে ক্যান্টনমেন্ট থানায় মামলা হয়েছে। কুমিল্লা পুলিশের সহযোগিতায় তাকে গ্রেপ্তার করে ঢাকায় আনা হচ্ছে।”

এর আগে বিয়ের প্রলোভনে ধর্ষণের অভিযোগে প্রিন্স মামুনের বিরুদ্ধে রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট থানায় গত রবিবার (৯ জুন) একটি মামলা করেন ওই নারী।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, প্রিন্স মামুনের সঙ্গে তিন বছর আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকের মাধ্যমে পরিচয় হয় ওই নারীর। পরিচয়ের একপর্যায়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তার সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক স্থাপন করেন মামুন। মামুন তাকে জানান যে তার ঢাকায় থাকার মতো নিজের কোনো বাসা নেই। প্রেমের সম্পর্ক এবং বিয়ের কথা বলায় মামুনকে নিজের বাসায় থাকতে দেন ওই নারী।

এজাহারে ওই নারী আরও উল্লেখ করেন, ২০২২ সালের ৭ জানুয়ারি মামুন তার মাকে সঙ্গে নিয়ে ওই বাসায় বসবাস করতে থাকেন। ওই দিন থেকেই মামুন বাসায় ওই নারীর সঙ্গে একই কক্ষে থাকতে শুরু করেন। বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ওই নারীর ইচ্ছার বিরুদ্ধে একাধিকবার শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করেন।

ভুক্তভোগী নারীর অভিযোগ, একাধিকবার বিয়ের বিষয় বললেও মামুন বিভিন্ন অজুহাতে সময়ক্ষেপণ করতে থাকেন। সর্বশেষ গত ১৪ মার্চ মামুন তাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করেন। এরপর বিয়ের কথা বললে মামুন ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন এবং অশ্লীল ভাষায় গালিগালাজ করেন। মামুনের মা-বাবার সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারাও তাকে গালিগালাজ করেন।

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -spot_img

পাঠক প্রিয়