রবিবার, জুন ১৬, ২০২৪
spot_img
Homeসংবাদসারাদেশচাকরিতে পুনর্বহালে দুদকে শরীফের আবেদন

চাকরিতে পুনর্বহালে দুদকে শরীফের আবেদন

প্রাইম ডেস্ক »

অপসারণের আদেশ প্রত্যাহার ও চাকরিতে পুনর্বহাল করতে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) চেয়ারম্যান বরাবর আবেদন করেছেন সংস্থাটির অপসারিত উপসহকারী পরিচালক শরীফ উদ্দিন। আজ রোববার সকালে দুদকের (চাকরি) বিধিমামলা, ২০০৮ এর ৪৮ বিধি অনুযায়ী অপসারণের আদেশ পুনর্বিবেচনার অনুরোধ জানিয়ে তিনি লিখিত আবেদন করেন।

আবেদনপত্রে তিনি বলেন, আমি ২০১৪ সালের ১২ অক্টোবর থেকে চলতি বছরের ১৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত কমিশনে সততা, বিশ্বস্থতা, অধ্যবসায় ও সর্বোচ্চ ন্যায় নিষ্ঠার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেছি। এই সময়ে আমি আমার সর্বোচ্চ দক্ষতার সঙ্গে ৭০ এর বেশি গুরুত্বপূর্ণ মামলা সুপারিশ/রুজু/সিএস জমা দিয়ে দেশের স্বার্থ সংরক্ষণের চেষ্টা করেছি। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য মামলাগুলো হলো রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠিকে অবৈধভাবে পাসপোর্ট ও এনআইডি প্রদান (২০টি মামলা), কক্সবাজার জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের ভূমি অধিগ্রহণ শাখা, পেট্রোবাংলা, বাংলাদেশ রেলওয়ের ৮৬৩ জন খালাসী নিয়োগের দুর্নীতির মামলা ও সম্পদের অনুসন্ধান ইত্যাদি।

কমিশনের কর্মকর্তা হিসেবে অর্পিত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে দুর্নীতি ও সংশ্লিষ্ট অনিয়মকে প্রতিরোধ করতে গিয়ে বিভিন্ন সময় সপরিবারে প্রাণনাশের হুমকির সম্মুখীন হয়েছি। তবু আমার ও আমার পরিবারের আর্থিক, সামাজিক ও জানমালের নিরাপত্তার দিকগুলো ন্যূনতম বিবেচনায় না নিয়ে দুর্নীতি দমন কমিশন (চাকরি) বিধিমালা, ২০০৮ এর ৫৪(২) বিধি অনুযায়ী গত ১৬ ফেব্রুয়ারি কোনো ধরনের কারণ দর্শানোর সুযোগ না দিয়ে আমাকে অপসারণ করা হয়। আমাকে চাকরি থেকে অপসারণের আদেশটি সম্পূর্ণ অযৌক্তিক ও অমানবিকভাবে করা হয়েছে। এই আদেশ দেওয়ার আগে আমাকে কোনো ধরনের কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়নি, যা কি না সংবিধানের ১৩৫ (২) অনুচ্ছেদ এবং মৌলিক অধিকারের সুস্পষ্ট লংঘন বলে উল্লেখ করেন শরীফ উদ্দিন।

গত ১৬ ফেব্রুয়ারি শরীফ উদ্দিনকে চাকরি থেকে অপসারণ করে দুদক। সংস্থাটির চেয়ারম্যান মোহাম্মদ মঈনউদ্দীন আবদুল্লাহ স্বাক্ষরিত আদেশে বলা হয়, ‘দুর্নীতি দমন কমিশন (কর্মচারী) বিধিমালা, ২০০৮-এর বিধি ৫৪ (২)-তে প্রদত্ত ক্ষমতাবলে মো. শরীফ উদ্দিন (উপসহকারী পরিচালক) দুদক, সমন্বিত জেলা কার্যক্রম, পটুয়াখালীকে চাকরি থেকে অপসারণ করা হলো। তিনি বিধি মোতাবেক ৯০ দিনের বেতন এবং প্রযোজ্য সুযোগ-সুবিধা পাবেন।’

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -spot_img

পাঠক প্রিয়