রবিবার, জুন ১৬, ২০২৪
spot_img
Homeটপ নিউজশেষদিনে কঠিন পরীক্ষার সামনে বাংলাদেশ

শেষদিনে কঠিন পরীক্ষার সামনে বাংলাদেশ

প্রাইম ডেস্ক »

ডারবান টেস্টের দ্বিতীয় ইনিংসে দক্ষিণ আফ্রিকাকে বেশি সময় টিকতে দিল না বাংলাদেশ। মেহেদী হাসান মিরাজ, এবাদত হোসেন ও তাসকিন আহমেদরা ২৭৪ ওভারের মধ্যেই স্বাগতিকদের অলআউট করে দিয়েছে। প্রথম ইনিংসের ৬৯ রানের লিড পাওয়ায় বাংলাদেশের লক্ষ্য দাঁড়িয়েছে ২৭৪ রান।

চতুর্থ ইনিংসে এই রান পাড়ি দিয়ে জিততে হলে নিজেদের টেস্ট ইতিহাস নতুন করে লিখতে হবে বাংলাদেশকে। চতুর্থ ইনিংসে চারবার রান তাড়া করে টেস্ট জিতেছে বাংলাদেশ। তবে কখনই এতো রান তাড়া করে জেতেনি। বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রান তাড়া ২১৫। ২০০৯ সালে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে এই রান তাড়ায় ৪ উইকেটে জিতেছিল বাংলাদেশ। এরপর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ১৯১, জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ১০১ ও মাউন্ট মঙ্গানুইতে ৪০ রান তাড়া করে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে জেতে মুমিনুল হকের দল।

যদিও নিজেদের রেকর্ড বদলাতে নেমে শুরুতেই দিকহারা বাংলাদেশ। দলীয় ৪ রানেই ফিরে যান ওপেনার সাদমান ইসলাম অনিক। আবারও বাংলাদেশের ইনিংসে প্রথম আঘাতটি হানেন প্রোটিয়া স্পিনার সাইমন হার্মার। এরপর বাংলাদেশকে পথ ভুলিয়ে দেন স্বাগতিকদের আরেক স্পিনার কেশব মহারাজ।

এক ওভারেই মাহমুদুল হাসান জয় ও অধিনায়ক মুমিনুল হককে ফিরিয়ে দিয়েছেন তিনি। ৮ রানেই ৩ উইকেট হারিয়ে মাঝ দরিয়ায় পড়ে গেছে সফরকারীরা। বাংলাদেশ ৬ ওভারে ১১ রান তুলতে আলোক স্বল্পতার কারণে খেলা বন্ধ হয়ে যায়। দুই দল মাঠ ছাড়ার পর চতুর্থ দিনের বাকি অংশের খেলা পরিত্যক্ত ঘোষণা করেন আম্পায়াররা।

শেষ দিনে জয়ের জন্য বাংলাদেশের প্রয়োজন ২৬৩ রান, হাতে আছে ৭ উইকেট। অপরাজিত থেকে মাঠ ছেড়েছেন নাজমুল হোসেন শান্ত ও মুশফিকুর রহিম। যেভাবে শুরুটা হয়েছে, তাতে বাংলাদেশ এখন হারের শঙ্কাতেই। ৭ উইকেট নিয়ে যে পুরো দিনটা কাটিয়ে দেওয়া কঠিন কাজ হবে, সেটা জানা আছে তাদের। আপাতত শান্ত, মুশফিক, লিটন কুমার দাস, ইয়াসির আলী রাব্বিদের হাতেই বাংলাদেশের ভাগ্য।

দক্ষিণ আফ্রিকা বিনা উইকেট ৬ রান তুলে তৃতীয় দিনের খেলা শেষ করে। চতুর্থ দিন শুরু করেন ডিন এলগার ও সারেল আরভিয়া। এদিন তাদের জুটি বড় হয়নি। ৮ রান করা আরভিয়াকে ফিরিয়ে এই জুটি ভাঙেন এবাদত হোসেন। এই ইনিংসে প্রোটিয়াদের হয়ে সর্বোচ্চ রানের ইনিংস খেলেন তাদের অধিনায়ক এলগার। বাঁহাতি এই ওপেনার ১০২ বলে ৭টি চারে ৬৪ রান করেন।

এ ছাড়া কিগান পিটারসেন ৩৬, রায়ান রিকেলটন ৩৯, ভিয়ান মুলডার ১১ ও সাইমন হার্মার ১১ রান করেন। বাংলাদেশের হয়ে ৩টি করে উইকেট নেন এবাদত হোসেন ও মেহেদী হাসান মিরাজ। প্রোটিয়াদের প্রথম ইনিংসের পর থেকে কাঁধে ব্যথা অনুভব করা তাসকিন আহমেদের বোলিং করার কথা না থাকলেও ঝুঁকি নিয়ে ১১ ওভার বোলিং করেন তিনি। ২৩ রান খরচায় ২টি উইকেট নেন তাসকিন।

এ সম্পর্কিত আরও পড়ুন

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisment -spot_img

পাঠক প্রিয়